ঢাকা, রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ১০ জৈষ্ঠ্য ১৪২৭, ১০ জ্বমাদিউল সানি ১৪৪২

মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্রের খেলা দেখাচ্ছে জার্মান


প্রকাশ: ৫ জানুয়ারী, ২০২১ ০৪:১৫ পূর্বাহ্ন


মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্রের খেলা দেখাচ্ছে জার্মান

স্টাফ রিপোর্টার: মধ্যপ্রাচের দেশগুলোতে কোটি কোটি ডলারের মারণাস্ত্র বিক্রি করছে জার্মান। এ ক্ষেত্রে কোনো নীতি-নৈতিকতার ধার ধারছে না ইউরোপের প্রভাবশালী দেশটি।

যুদ্ধকবলিত মধ্যপ্রাচের দেশগুলোতে কোটি কোটি ডলারের মারণাস্ত্র বিক্রি করছে জার্মান। এ ক্ষেত্রে কোনো নীতি-নৈতিকতার ধার ধারছে না ইউরোপের প্রভাবশালী দেশটি।

২০২০ সালে অন্তত পাঁচটি দেশে ১৯৫ কোটি ডলারের (১৬১ ইউরো) অস্ত্র রফতানির অনুমোদন দিয়েছে চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের সরকার।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র দিয়েছে মিসরকে। ক্রেতা আরব দেশগুলো এসব অস্ত্র প্রধানত ইয়েমেন আর লিবিয়ায় প্রাণঘাতী যুদ্ধে ব্যবহার করছে। ডেইলি সাবাহ

সম্প্রতি জার্মান পার্লামেন্টের নিুকক্ষ বুন্দেসট্যাগে গ্রিন পার্টির এক সংসদ সদস্যের এক প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে মধ্যপ্রাচ্যে বিশাল পরিমাণ অস্ত্র বিক্রির এসব তথ্য জানিয়েছে দেশটির অর্থ মন্ত্রণালয়। ইয়েমেনে ২০১৪ সাল থেকে হুথি বিদ্রোহীদের দমনে হামলা চালিয়ে আসছে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট।

জোটে রয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিসর, কুয়েত, জর্ডান ও বাহরাইন। ছয় বছরের যুদ্ধে দুই লাখ ৩৩ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

অন্যদিকে লিবিয়ার গৃহযুদ্ধে দুটি বিবদমান পক্ষকে মদত দিয়ে আসছিল কাতার, তুরস্ক এবং আরব আমিরাত ও মিসর। যদিও বর্তমানে সেখানে অস্ত্র বিরতি চলছে।

সমালোচনা ও বিতর্ক সত্ত্বেও গত বছর (২০২০ সালে) বড় অঙ্কের অস্ত্র বিক্রি করেছে জার্মানি। মিসরে গত বছর ৭৫ কোটি ইউরো বা ৯১ কোটি ডলারের অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে জার্মান সরকার।

তালিকায় থাকা দেশগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অস্ত্র বিক্রির ছাড় দেওয়া হয়েছে তেলসমৃদ্ধ দেশ কাতারে।

যার পরিমাণ সাড়ে ৩০ কোটি ইউরো বা প্রায় ৩৭ কোটি ডলার। ২০১৯ সালে জার্মানি-সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে কয়েকশ’ কোটি ইউরোর অংশীদারিত্ব চুক্তি হয়েছে। আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স আল নাহিয়ান ১২ জুন বার্লিন সফরে এলে নতুন এই সম্পর্কের সূচনা হয়।

ইয়েমেন, লিবিয়া যুদ্ধে বিতর্কিত ভূমিকার কারণে জার্মানির গ্রিন পার্টি এসব চুক্তির বিরোধিতা করে এলেও গেল বছর পাঁচ কোটি ইউরোর বেশি বা ছয় কোটি ডলারের উপরে অস্ত্র রফতানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

কুয়েতের কাছেও দুই কোটি ৩৪ লাখ ইউরো বা দুই কোটি ৮৪ লাখ ডলারের অস্ত্র বিক্রি করেছে জার্মানি। ২০২০ সালেই এই রপ্তানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কূটনৈতিক নানা ইস্যুতে টানাপোড়েন থাকলেও জার্মানির কাছ থেকে ঠিকই অস্ত্র আমদানি করছে তুরস্ক।

বিদায়ী বছরে দেশটিতে প্রায় দুই কোটি ৩০ লাখ ইউরোর অস্ত্র রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছে জার্মান সরকার।

২৯ হাজার কোটি ডলারের স্মার্ট বোমা কিনছে সৌদি : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিদায়ের আগে তড়িঘড়ি করে কয়েক হাজার স্মার্ট বোমা কিনছে সৌদি আরব। তিন হাজার স্মার্ট বোমা বিক্রির একটি প্রস্তাবে ইতোমধ্যে অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন সামরিক দপ্তর পেন্টাগন।

পেন্টাগনের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ২৯ হাজার কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ওই বোমা বিক্রিসংক্রান্ত চুক্তির অনুমোদন দেয়া হয়। রয়টার্সের খবরে বলা হয়, হোয়াইট হাউজে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের শেষ মুহূর্তে এই চুক্তি অনুমোদন দেওয়া হলো। মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার তৈরি অস্ত্রের সবচেয়ে বড় ক্রেতা সৌদি আরব।


   আরও সংবাদ