ঢাকা, শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৭, ১৯ রবিউল সানি ১৪৪২

হাবিপ্রবি ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের নবনিযুক্ত ডীন প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাত হোসেন


প্রকাশ: ১৯ নভেম্বর, ২০২০ ১০:৪৯ পূর্বাহ্ন


হাবিপ্রবি ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের নবনিযুক্ত ডীন প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাত হোসেন

হাবিপ্রবি থেকে মোঃ আবু সাহেব: দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের নতুন ডীন হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছে  ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং এ্যান্ড টেকনোলজি  ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাত হোসেন সরকার।

 বুধবার (১৮ নভেম্বর ) বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেমের অনুমোদনক্রমে এবং রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. মোঃ ফজলুল হকের স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয় ।

অফিস আদেশে বলা হয়," ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন পদে অধিষ্ঠিত অধ্যাপক ড. মারুফ আহমেদ ফুড প্রসেসিং এ্যান্ড প্রিজারভেশন বিভাগের ডীন পদের কার্যকাল ১৮.১১.২০২০ তারিখ শেষ হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় আইনের ২৩(৫) ধারা মূলে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে অধ্যাপকগণের মধ্য হতে আবর্তনক্রম অনুযায়ী পরবর্তী দুই (২) বছরের জন্য ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং এ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ সাজ্জাত হোসেন সরকারকে নিম্ন বর্ণিত শর্তসাপেক্ষে ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন পদে নিয়োগ প্রদান করা হলো।

 শর্তাবলী:
১। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রবর্তিত সকল বিধি-বিধান মেনে চলতে বাধ্য থাকবেন।
২। বিধি মোতাবেক এক্ষেত্রে প্রদেয় ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন।
৩। এ নিয়োগের মেয়াদ সর্বোচ্চ দুই(২) বছর, তবে মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্বেই এ নিয়োগ আদেশ বাতিল করতে পারবেন।
৪। এ আদেশ ১৯.১১.২০২০ তারিখ হতে কার্যকর হবে "।

ডীন হিসাবে নিয়োগ পাওয়ার পর অধ্যাপক ড. মোঃ সাজ্জাত হোসেন বলেন, " শুরুতেই আমি মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে শুকরিয়া আদায় করছি। আমার আজকের অবস্থানে আসতে যে সকল মানুষের অবদান রয়েছে তাদের সকলকে স্মরণ করছি। পাশাপাশি আমার সম্মানিত পিতা-মাতা, সম্মানিত শিক্ষক মন্ডলী সহ সকল শুভাকাঙ্ক্ষীকে ধন্যবাদ জানাই। ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদকে এগিয়ে নিতে আমি সকলের সহায়তা ও দোয়া প্রার্থনা করছি। আমি জানি ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের শিক্ষার্থীদের অনেক সমস্যা আছে, সেগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে সময়ের সাথে সাথে সমাধান করার চেষ্টা করা হবে। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাতে চাই আমার উপর আস্থা রাখার জন্য। আমার চেষ্টা থাকবে ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদকে এগিয়ে নিতে শিক্ষা ও গবেষণার খাতকে আরো বেশি সমৃদ্ধশালী ও প্রসার করা "।

 


   আরও সংবাদ