ঢাকা, রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ১৫ জ্বিলহজ্ব ১৪৪২

শাহানাজ অর্থ উপার্জনকে পেশা হিসেবে নিয়ে সর্বশান্ত করছে যুবকদের


প্রকাশ: ২০ জুলাই, ২০২১ ১০:৫৫ পূর্বাহ্ন


শাহানাজ অর্থ উপার্জনকে পেশা হিসেবে নিয়ে সর্বশান্ত করছে যুবকদের

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর ডেমরা এলাকা থেকে শাহানাজ পারভীন সানু (৩৯) নামের প্রতারক চক্রের এক নারী সদস্যকে জাল এনআইডি, জন্ম নিবন্ধন, ব্যাংকের চেকবই ও নিকাহনামাসহ আটক করেছে র‌্যাব-৩। আজ সকালে র‌্যাব-৩'এর সহকারী পরিচালক মিডিয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীণা রানী দাস এক বার্তায় এতথ্য নিশ্চিত করেন।
 
এক ভিকটিমের অভিযোগের ভিত্তিতে রাজধানীর ডেমরা এলাকায় র‌্যাব-৩'এর আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে প্রতারক চক্রের সদস্য সানুকে আটক করে। এসময় স্বাক্ষীদের উপস্থিতিতে তার বাসা তল্লাশী করে ০৩ টি জাল এনআইডি, ০৩ টি জন্ম নিবন্ধনের কপি, বিভিন্ন নামীয় ৩ টি ব্যাংক একাউন্টের চেকবই, একটি নিকাহনামা, বিভিন্ন ব্যক্তির ০৩ টি এনআইডি ও ০২ টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

আটককৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গত বছর ২৫ ডিসেম্বর আসামী তার প্রথম স্বামী-সন্তান, নিজের বয়স ও প্রকৃত পরিচয় গোপন রেখে কাজী অফিসে গিয়ে জাল জাতীয় পরিচয় পত্র প্রদর্শন করে প্রতরণার আশ্রয় নিয়ে ভিক্টিমের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এই বিবাহের মূল উদ্দেশ্যই ছিল ভিক্টিমের নিকট হতে অর্থ আত্মসাৎ করা। সে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ব্যক্তির সাথে প্রেমের অভিনয় করে বিবাহের ফাঁদে ফেলে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করে আসছে।

সে বিভিন্ন নামে ছদ্মবেশ ধারণ করে ফেসবুকের মাধ্যমে সহজ সরল ব্যক্তিদেরকে তার প্রেমের ফাঁদে ফেলে। তারপর বিভিন্ন ধরনের প্রলোভন দেখিয়ে তাদের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয় মর্মে ধৃত আসামী স্বীকার করে। তার নিকট হতে উদ্ধারকৃত জাল জাতীয় পরিচয় পত্র, জন্ম নিবন্ধন ও একাধিক ব্যাংক একাউন্ট সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে সে জানায় প্রতারণার অংশ হিসেবে সে এই সকল জাল নথি ও একাধিক ব্যাংক একাউন্ট সৃজন করেছে।

আটককৃত আসামী বিবাহিত, তার স্বামী সৌদি প্রবাসী। তার ২১ বছরের একটি কন্যা সন্তান ও দুইটি ছেলে সন্তান রয়েছে। তার বর্তমান স্বামীর সাথে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়নি এবং বর্তমান স্বামীই তাদের ভরন পোষণ এর দায়িত্ব পালন করে আসছে। তথাপিও আসামী স্বামীর অনুপস্থিতিতে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে । ভিক্টিমের সাথে বিয়ের পর বিজনেস ভিসায় অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে আটককৃত আসামী ভিক্টিমের নিকট থেকে ব্যাংক একাউন্ট এবং বিকাশের মাধ্যমে বার লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেয়। এভাবে বিভিন্ন ব্যক্তির নিকট থেকে ধৃত আসামি এক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানা যায়।

আটককৃত আসামীর বিরুদ্ধে ডেমরা থানায় মামলার দায়ের করা হয়েছে।


   আরও সংবাদ