ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৮ ফাল্গুন ১৪২৭, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

য‌শোর কি‌শোর উন্নয়ন কে‌ন্দ্রে ফের ঝা‌মেলা, পৃথক কারণে হাসপাতালে ভর্তি ৩


প্রকাশ: ১৭ অক্টোবর, ২০২০ ১০:০৮ পূর্বাহ্ন


য‌শোর কি‌শোর উন্নয়ন কে‌ন্দ্রে ফের ঝা‌মেলা, পৃথক কারণে হাসপাতালে ভর্তি ৩

   

য‌শোর প্র‌তি‌নি‌ধি : যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে (বর্তমানে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র) আবার ঝামেলা সৃষ্টি হচ্ছে। কিছু দিনের ব্যবধানে সেখানকার তিন কিশোর ‘বন্দি’কে পৃথক ঘটনায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার দিনগত রাত সাড়ে ১১টা থেকে আজ শনিবার বেলা ১১টা পর্যন্ত সময়কালে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের স্টাফ জয়নাল তিন জনকে হাসপাতালে এনে ভর্তি করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, হাসপাতালে ভর্তি হওয়াদের মধ্যে সাকিব (১৭) নামে এক কিশোর ‘বন্দি’ রয়েছে। সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল। সাকিব বাগেরহাট জেলার চিতলমারীর চৌদ্দহাজারী গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে। সে একটি হত্যা মামলায় অভিযুক্ত হয়ে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে আছে। শুক্রবার রাতে সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল। তাকে উদ্ধার করে রাতেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে, সাজেদুল (১৪) নামে এক ‘বন্দি’কে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। যে মারামারিতে আহত হয়েছে। সাজেদুল নীলফামারী জেলার গাছবাড়ি গ্রামের আব্দুল লতিফ মিয়ার ছেলে। ১৪ দিন আগে তাকে যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে আনা হয়। আহত অবস্থায় শনিবার বেলা ১১টার দিকে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্যদিকে, বুকে ব্যথাজনিত কারণে সাকিব (১৬) নামে আরেক কিশোর ‘বন্দি’কে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে মাদারীপুর জেলার টেকেরহাটের শাহজাহান আলীর ছেলে।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এনাম আহম্মেদ জানান, যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে একজন আহত, একজন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টাকারী এবং একজন বুকে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

উল্লেখ্য, যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে দীর্ঘদিন ধরে অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা, দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ আছে। এই সব কারণে বিভিন্ন সময় এখানে নানা অঘটন ঘটেছে। এর মধ্যে চলতি বছর ১৩ আগস্টে সবচেয়ে বড় অঘটন ঘটে। ‘দায়িত্বপ্রাপ্তদের পিটুনিতে’ সেদিন কেন্দ্রের তিন ‘বন্দি’ নিহত হয়। এই ঘটনায় রুজু হওয়া মামলায় কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মামলাসহ প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।


   আরও সংবাদ