ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ ফাল্গুন ১৪২৭, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

নীলদলকে 'তদবিরবাজ, গ্রুপবাজ ও স্বার্থবাজ' বললেন জবি'র শিক্ষক


প্রকাশ: ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন


নীলদলকে 'তদবিরবাজ, গ্রুপবাজ ও স্বার্থবাজ' বললেন জবি'র শিক্ষক

   

জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন নীলদলকে 'তদবিরবাজ, গ্রুপবাজ ও স্বার্থবাজ' বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের আরেক সংগঠন 'জয় বাংলা শিক্ষক সমাজ' এর আহবায়ক অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস। নীলদলের ভাঙ্গন সম্পর্কে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় তিনি এমন মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, "নীল দলের ভাঙ্গন হচ্ছে স্বার্থের কোন্দলের ফল। নীল দলের দুই গ্রুপ আগে থেকেই নিজেদের স্বার্থে তদবির করে আসছে। এরা হলো তদবিরবাজ, গ্রুপবাজ এবং স্বার্থবাজ।" এসময় তিনি শব্দগুলো পুনরায় ব্যবহার করে বলেন, "নীলদলের জন্য তদবিরবাজ, গ্রুপবাজ ও স্বার্থবাজ এই তিনটি শব্দই প্রযোজ্য। কেউ কেউ আছে যারা বিএনপির সময়ে নিয়োগ পেয়েছে এমন শিক্ষকও এখন নীলদল করে। ওদের সঙ্গে আমাদের কোন বনিবনা হয় না।"

এর আগে ২০১৭ সাল থেকে দুই ভাগে বিভক্ত হওয়া জবি নীলদল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নে ব্যর্থতার প্রশ্ন তুলে নীলদলের (একাংশ) কার্যনির্বাহী সদস্যপদ থেকে পদত্যাগ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামি ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও শিক্ষক সমিতির সাবেক যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ড. শামছুল কবির। পদত্যাগের পর নীলদলে তার মিত্র শিক্ষকদের নিয়ে আরেকটি নতুন দল গঠনেরও ইঙ্গিত দেন তিনি।

বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস এ নীলদল সম্পর্কে আরও বলেন, এর আগে নীল দলে দুইটা গ্রুপ থাকার কারণে আমি কখনো অ্যাক্টিভ ছিলাম না। তবে পার্সন দেখে ভোট দিতাম। স্বার্থীবাদী বলে আমি নীল দলের বাইরে 'জয় বাংলা শিক্ষক সমাজ' গঠন করি।

দুই সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি 'জয় বাংলা শিক্ষক সমাজ' এর বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে মিল্টন বিশ্বাস বলেন, "আমরা দলের কানেক্টিভিটি বাড়াচ্ছি। শিক্ষকদের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি করছি। খুব শিঘ্রই আমরা দুই সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি থেকে পূর্ণাঙ্গ কমিটি দিব।"

উল্লেখ্য,  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন নীলদল একটি থাকলেও একই বছরে তা ভাগ হয়ে যায়।এর দুই বছর পর ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে 'জয় বাংলা শিক্ষক সমাজ' নামে আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের আরেকটি সংগঠণের আত্মপ্রকাশ হয়।


   আরও সংবাদ